June 6, 2020, 11:18 am

News Headline :
হাতীবান্ধায় পরীক্ষায় ফেল করার লজ্জায় ছাত্রীর আত্মহত্যা! রোজার ঈদ মানেই যেন আনন্দের ফোয়ারা-রাকিবুজ্জামান আহমেদ চকরিয়ায় পিস ফাইন্ডার পক্ষ থেকে মানসিক প্রতিবন্ধী ব্যক্তিকে বিনামূল্যে হুইল চেয়ার উপহার দিলেন ২৩০ টি পরিবারের মাঝে ঈদ উপহার বিতরন করলেন শান্ত মিয়া। শতাধিক পরিবারের মাঝে ঈদ উপহার বিতরণ করলেন আবু হানিফ চয়ন। রংপুরে ২৩ হাজার পরিবারের পাশে বাণিজ্যমন্ত্রী কলেজ স্টাফ ও এলাকাবাসীর জন্য ঈদ উপহার তুলে দিলেন ছাত্রলীগ নেতা রিপন আম্ফানে উপকূল তছনছ, নিহত পাঁচ মোংলা-পায়রায় মহাবিপদ সংকেত, ১৫ ফুট জলোচ্ছ্বাসের পূর্বাভাস মদাতী বাসিকে ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন আফতাবুজ্জামান দুলাল ।
সিডো’র উদ্দ্যোগে কুড়িগ্রামের ফুলবাড়িতে ৪টি বিদ্যালয়ে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ

সিডো’র উদ্দ্যোগে কুড়িগ্রামের ফুলবাড়িতে ৪টি বিদ্যালয়ে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ

”আমরা কল্যানের জন্য” এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে কুড়িগ্রামের ফুলবাড়িতে সোস্যাল এন্ড ইকোনোমিক
ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন (সিডো)’র উদ্যোগে চারটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মেধাবী ছাত্রছাত্রীদের শিক্ষা
উপকরণ বিতরণ করা হয়। আটিয়াবাড়ী ১ নং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, নওদাবস সরকারি প্রাথমিক
বিদ্যালয়, বোয়াইলভীর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও পূর্ব চন্দ্রখানা জকারহাট সরকারী প্রাথমিক
বিদ্যালয়ের মেধাবী ছাত্রছাত্রীদেরকে এই শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করছেন Social & Economic
Development Organization (SEDO)র সম্মানিত ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ সাইদুল হক। তিনি কোমলমতি
ছাত্রছাত্রীদেরকে উপদেশ মূলক মজার মজার গল্প ও সবাইকে ভাল মানুষ হওয়ার জন্য আহবান জানান।
দেশাত্ববোধ ও সুষ্ঠ জাতি গঠনের মানসিকতা নিয়ে যেন ছাত্রছাত্রীদেরা বেড়ে উঠতে পারে সেজন্য
শিক্ষকদের যথাযথ দ্বায়িত্ব পালনের উপর গুরুত্বারোপ করেন। তিনি বলেন সিডো ২০১০ সাল থেকে
বরাবরের মতই বিভিন্ন সামাজিক সচেতনতামূলক ও স্বেচ্ছাসেবামূলক কাজ করে আসছে। মেধাবী ছাত্র-
ছাত্রীদের কে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করতে পেরে আমরা গর্বিত। পাশাপাশি সকল কন্ট্রিবিউটরদেরকে অসংখ্য
ধন্যবাদ জানান ও আগামীতেও পর্যায়ক্রমে উপজেলার প্রতিটি স্কুলে এই শিক্ষা উপকরণ বিতরণ
কার্যক্রম অব্যাহত রাখা হবে বলে জানান।

সিডো কি?

সোস্যাল এন্ড ইকোনোমিক ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন সংক্ষেপে (SEDO) সিডো (license No. Kuri-715)
২০১০ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রকৌশলী মোঃ আব্দুস সালাম (সুজা) ও প্রকৌশলী মোঃ শফিউল আলম (সেলিম)
দুই ভাইয়ের উদ্যোগে সর্বপ্রথম আটিয়াবাড়ি গ্রামে এর কার্যক্রম শুরু হয়। প্রথমে এলাকাবাসীর সাথে
সংগঠনটির লক্ষ্য ও উদ্দ্যেশ্য শেয়ার করলে ব্যাপক উৎসাহ ও উদ্দীপনার সাথে সবাই সাধুবাদ জানান। এরপর
এই গ্রাম থেকেই যাত্রা শুরু। সংগঠনটি শিক্ষা ও দারিদ্র বিমোচনের জন্য ব্যাপকভাবে কাজ করার ফলে আজকে
এই গ্রামের প্রত্যেক ঘরেই শিক্ষার আলোয় আলোকিত। পাশাপাশি দারিদ্র প্রায় ১০% এর নিচে নেমে এসেছে।
এখন পুরো উপজেলা জুড়েই এর কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে।
সংগঠনটির চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুস সালাম (সুজা)র সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন: ”যারা অন্যের জন্য
নিজেকে বিলিয়ে দেয় তারা সাড়া জীবন বেচেঁ থাকে।” তিনি আরও বলেন- কুড়িগ্রামের মানুষজন এখনো
দারিদ্র্যের বিরুদ্ধে নিরন্তর লড়াই করছে। দারিদ্র্যের ভর নিয়ে কুড়িগ্রাম এখনো শীর্ষেই আছে। কুড়িগ্রামের
দরিদ্রতার হার ৬৩%, যা দেশে সর্বোচ্চ। কিন্তু দারিদ্র্য বিমোচন কঠিন বিষয় নয়। আমরা যদি
শিক্ষাক্ষেত্র, কৃষিনির্ভর শিল্প, শিল্পায়ন, যোগাযোগ ও বাণিজ্য আর একটু বৃদ্ধি করতে পারি তাহলে
আমাদের এই জেলা হবে বাংলাদেশের রোল মডেল। আমরা বিশ্বাস করি সুশিক্ষা ও স্থানীয় অবকাঠাম উন্নয়নই
পারে একটি সমাজকে বদলে দিতে। তাই সিডো শিক্ষার বিস্তারসহ অবহেলিত এই জনগোষ্ঠীর উন্নয়নের জন্য
কাজ করে যাচ্ছে।






Desherkhobor24 2016-2020© All rights reserved.

<